image

সবচেয়ে ভয়ংকর হাদিসগুলোর একটি
নিচে দেয়া হলো। মনযোগ দিয়ে পড়ুন।
.
রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেন, ‘আমার উম্মতের
অনেকের কথা আমি জানি, যারা
কিয়ামাতের দিন তিহামা অঞ্চলের
সাদা পর্বতমালা পরিমাণ নেকি
নিয়ে উপস্থিত হবে, কিন্তু আল্লাহ
সেগুলোকে বিক্ষিপ্ত ধূলিকণায়
পরিণত করে দেবেন।
.
এই কথা শুনে সাওবান (রা.) বললেন, “হে
রাসূলাল্লাহ! তাদের পরিচয় দিন,
আমরা যেন নিজেদের অজান্তে
তাদের অন্তর্ভুক্ত না হয়ে যাই।”
.
তিনি (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া
সাল্লাম) বললেন, তারা তোমাদেরই
ভাই, তোমাদের সাথেই থাকে।
তোমরা যেমন রাত জেগে ইবাদাত
করো, তারাও করে।
.
কিন্তু যখন একাকী হয় তখন আল্লাহর
নিষিদ্ধকৃত হারামে লিপ্ত হয়।’
.
[ইবনে মাজাহ ৪২৪৫; হাদিসটি সহিহ]
.
আমরা যারা সুযোগ পেলেই দৃষ্টির
খেয়ানত করি, লজ্জাস্থানের খেয়ানত
করি, মানুষের অধিকার নষ্ট করি ও
নির্জনে বিভিন্ন হারামে লিপ্ত হই –
এই হাদিস আমাদের জন্য
মহাসতর্কবার্তা। আল্লাহ আমাদেরকে
গোপন গোনাহ থেকে রক্ষা করুন।

image

আপনি একটা বিষয় নিয়ে কষ্ট পাচ্ছেন।
বারবার মনে পড়ছে। স্মৃতিচারণ করে
নিজেকে নিজে কষ্ট দিচ্ছেন। কী
লাভ এতে? এভাবে কষ্ট পেয়ে, স্ট্রেস
নিয়ে কোনো লাভ আছে? তার চেয়ে
বরং ভুলে যান। সবকিছু সহজ স্বাভাবিক
ভাবে নিন। নিজের জীবনে কিছু
আনএক্সপেক্টেড ঘটনা ঘটার পরও মুখে
সবসময় হাসি দেখে এক ভাই কনফিউজড
হয়ে জিজ্ঞেস করেছিলেন,
“ভাই আপনি এখনো হাসছেন? আমারই
তো খারাপ লাগছে!”
বলেছিলাম, “হা হা ভাই! আমরা
আল্লাহর যেকোনো ফায়সালার উপর
সন্তুষ্ট!”
.
হ্যাঁ, আমাদের আল্লাহর যেকোনো
সিদ্ধান্তের উপর সন্তুষ্ট থাকতে হবে।
তিনি কখনো আমাদের উপর অবিচার
করেন না। তিনি আমাদের জন্য যা
উত্তম তাই করেন। আল্লাহ্ সুবাহানাহু
ওয়া তা’অালা যদি আমাদের
দেখিয়ে দিতেন কিভাবে তিনি
সমস্যাগুলোর সমাধান করেন তো আমরা
কৃতজ্ঞতা সহকারে তাঁর দরবারে
সিজদায় পড়ে থাকতাম। তাই আল্লাহর
উপর দৃঢ় বিশ্বাস রাখুন। সব কষ্ট ভুলে যান।
জীবনকে সহজভাবে নিন। যেকোনো
সমস্যা ঠান্ডা মাথায় মোকাবেলা
করুন। সর্বাবস্থায় আল্লাহ্
আজ্জাওয়াজালের উপর ভরসা রাখুন,
কৃতজ্ঞ থাকুন আমাদের রবের প্রতি।
.
তিনি আপনাকে ঠকাবেন

ছালাতের রুকন সমূহ

*** ছালাতের রুকন সমূহ***
→ ‘রুকন’ অর্থ স্তম্ভ। এগুলি অপরিহার্য
বিষয়। যা ইচ্ছাকৃত বা ভুলক্রমে
পরিত্যাগ করলে ছালাত বাতিল
হয়ে যায়। যা ৭টি। যেমন- Continue reading “ছালাতের রুকন সমূহ”