হাদিসের আলোকে জাহান্নামের শাস্তি,

– ﻭﻋﻦ ﺳﻤﺮﺓ ﺑﻦ ﺟﻨﺪﺏ  : ﺃﻥَّ ﻧﺒﻲَّ ﺍﻟﻠﻪ ﷺ
، ﻗَﺎﻝَ : ‏(‏( ﻣِﻨْﻬُﻢْ ﻣَﻦْ ﺗَﺄﺧُﺬُﻩُ ﺍﻟﻨَّﺎﺭُ ﺇِﻟَﻰ ﻛَﻌْﺒَﻴﻪِ ،
ﻭَﻣﻨْﻬُﻢْ ﻣَﻦْ ﺗَﺄﺧُﺬُﻩُ ﺇِﻟَﻰ ﺭُﻛْﺒَﺘَﻴﻪِ ، ﻭَﻣﻨْﻬُﻢْ ﻣَﻦْ
ﺗَﺄﺧُﺬُﻩُ ﺇِﻟَﻰ ﺣُﺠﺰَﺗِﻪِ ، ﻭَﻣِﻨْﻬُﻢْ ﻣَﻦْ ﺗَﺄﺧُﺬُﻩُ ﺇِﻟَﻰ
ﺗَﺮْﻗُﻮَﺗِﻪِ ‏)‏) ﺭﻭﺍﻩ ﻣﺴﻠﻢ .
‏(‏( ﺍﻟﺤُﺠْﺰَﺓُ ‏)‏) : ﻣَﻌْﻘِﺪُ ﺍﻹﺯﺍﺭ ﺗَﺤْﺖَ ﺍﻟﺴُّﺮَّﺓِ ، ﻭَ
‏( ‏( ﺍﻟﺘَّﺮْﻗُﻮَﺓُ ‏) ‏) ﺑﻔﺘﺢ ﺍﻟﺘﺎﺀِ ﻭﺿﻢ ﺍﻟﻘﺎﻑ : ﻫﻲ
ﺍﻟﻌَﻈﻢُ ﺍﻟَّﺬِﻱ ﻋِﻨْﺪَ ﺛَﻐْﺮَﺓِ ﺍﻟﻨَّﺤْﺮِ ، ﻭَﻟﻺﻧْﺴَﺎﻥِ
ﺗَﺮْﻗُﻮﺗَﺎﻥِ ﻓﻲ ﺟَﺎﻧﺒَﻲ ﺍﻟﻨَّﺤْﺮِ .


সামুরা ইবনে জুনদুব
রাদিয়াল্লাহু ‘আনহু থেকে
বর্ণিত। নবী সাল্লাল্লাহু
‘আলাইহি ওয়াসাল্লাম
বলেনঃ

জাহান্নামের

আগুনে দোযখীদের কারো
গোড়ালী পর্যন্ত, কারো
হাটু পর্যন্ত, কারো কোমর
পর্যন্ত এবং কারো গলা
পর্যন্ত পুড়তে থাকবে
(প্রত্যেকে নিজ নিজ গুনাহ
অনুযায়ী শাস্তিতে পতিত
হবে)।

(ইমাম মুসলিম
হাদীসটি উদ্ধৃত করেছেন)

জাহান্নামের লঘু শাস্তি

নুমান ইবনে বাশীর
রাদিয়াল্লাহু ‘আনহু থেকে
বর্ণিত। তিনি বলেন, আমি
রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু
‘আলাইহি ওয়াসাল্লামকে
বলতে শুনেছিঃ কিয়ামতের
দিন জাহান্নামীদের মধ্যে
সবচাইতে লঘু শাস্তি প্রাপ্ত Continue reading “জাহান্নামের লঘু শাস্তি”

বাংলা কোরআন (Bangla quran)
.
.সম্পূর্ণ জীবন বিধান
সূরা বাকারা (sura bakara)
সূরা বাকারা অর্থ গাভি
মোট আয়াত ২৮৬
.
ﺑِﺴْﻢِ ﺍﻟﻠﻪِ ﺍﻟﺮَّﺣْﻤﻦِ

ﺍﻟﺮَّﺣِﻴﻢِِ পরম করুনাময় অসীম দয়ালু

আল্লাহর নামে শুরু

ﺍﻟﻢ
আলিফ-লাম মীম

ﺫَﻟِﻚَ ﺍﻟْﻜِﺘَﺎﺏُ ﻻَ ﺭَﻳْﺐَ ﻓِﻴﻪِ ﻫُﺪًﻯ ﻟِّﻠْﻤُﺘَّﻘِﻴﻦَ
এই সেই কিতাব যাতে কোন
সন্দেহ নাই, এ সাবধানীদের
জন্য পথ নির্দেশক।

ﺍﻟَّﺬِﻳﻦَ ﻳُﺆْﻣِﻨُﻮﻥَ ﺑِﺎﻟْﻐَﻴْﺐِ ﻭَﻳُﻘِﻴﻤُﻮﻥَ ﺍﻟﺼَّﻼﺓَ ﻭَﻣِﻤَّﺎ
ﺭَﺯَﻗْﻨَﺎﻫُﻢْ ﻳُﻨﻔِﻘُﻮﻥَ
(সাবধানী ওরাই ) যারা
অদৃশ্যে বিশ্বাষ করে,সালাত
কায়েম করে এবং তাদের যা
দান করেছি তা থেকে তারা
ব্যয় করে।

ﻭﺍﻟَّﺬِﻳﻦَ ﻳُﺆْﻣِﻨُﻮﻥَ ﺑِﻤَﺎ ﺃُﻧﺰِﻝَ ﺇِﻟَﻴْﻚَ ﻭَﻣَﺎ ﺃُﻧﺰِﻝَ ﻣِﻦ
ﻗَﺒْﻠِﻚَ ﻭَﺑِﺎﻵﺧِﺮَﺓِ ﻫُﻢْ ﻳُﻮﻗِﻨُﻮﻥَ
এবং যারা তাতে বিশ্বাষ
করে যা তোমার প্রতি অবতীর্ণ
করা হয়েছে এবং তোমার
পুর্বে যা অবতীর্ণ করা
হয়েছে,আর পরকালের প্রতি
যারা দৃঢ় আস্থা রাখে।

ﺃُﻭْﻟَـﺌِﻚَ ﻋَﻠَﻰ ﻫُﺪًﻯ ﻣِّﻦ ﺭَّﺑِّﻬِﻢْ ﻭَﺃُﻭْﻟَـﺌِﻚَ ﻫُﻢُ
ﺍﻟْﻤُﻔْﻠِﺤُﻮﻥَ
তারাই তাদের প্রতিপালকের
নির্দেশিত পথে রয়েছে এবং
তারাই পূর্ণ সফলকাম।

ﺇِﻥَّ ﺍﻟَّﺬِﻳﻦَ ﻛَﻔَﺮُﻭﺍْ ﺳَﻮَﺍﺀٌ ﻋَﻠَﻴْﻬِﻢْ ﺃَﺃَﻧﺬَﺭْﺗَﻬُﻢْ ﺃَﻡْ ﻟَﻢْ
ﺗُﻨﺬِﺭْﻫُﻢْ ﻻَ ﻳُﺆْﻣِﻨُﻮﻥَ
নিশ্চয় যারা কাফের, আপনি
তাদের ভয় দেখান বা নাই
দেখান উভয়ই সমান,তারা ঈমান
আনবে না।

ﺧَﺘَﻢَ ﺍﻟﻠّﻪُ ﻋَﻠَﻰ ﻗُﻠُﻮﺑِﻬﻢْ ﻭَﻋَﻠَﻰ ﺳَﻤْﻌِﻬِﻢْ ﻭَﻋَﻠَﻰ
ﺃَﺑْﺼَﺎﺭِﻫِﻢْ ﻏِﺸَﺎﻭَﺓٌ ﻭَﻟَﻬُﻢْ ﻋَﺬَﺍﺏٌ ﻋﻈِﻴﻢٌ
আল্লাহ তাদের অন্তর ও
কর্ণসমূহের উপর মহর মেরে
দিয়েছেন ও তাদের চোখের
উপর আবরণ রয়েছে আর তাদের
জন্য রয়েছে কঠিন শাস্তি ।

ﻭَﻣِﻦَ ﺍﻟﻨَّﺎﺱِ ﻣَﻦ ﻳَﻘُﻮﻝُ ﺁﻣَﻨَّﺎ ﺑِﺎﻟﻠّﻪِ ﻭَﺑِﺎﻟْﻴَﻮْﻡِ ﺍﻵﺧِﺮِ
ﻭَﻣَﺎ ﻫُﻢ ﺑِﻤُﺆْﻣِﻨِﻴﻦَ
আর মানুষের মধ্যে এমন কতক
লোক আছে যারা বলে আমরা
আল্লাহ ও পরকালে বিশ্বাষী
অথচ তারা তারা বিশ্বাষী
নয়।

ﻳُﺨَﺎﺩِﻋُﻮﻥَ ﺍﻟﻠّﻪَ ﻭَﺍﻟَّﺬِﻳﻦَ ﺁﻣَﻨُﻮﺍ ﻭَﻣَﺎ ﻳَﺨْﺪَﻋُﻮﻥَ ﺇِﻻَّ
ﺃَﻧﻔُﺴَﻬُﻢ ﻭَﻣَﺎ ﻳَﺸْﻌُﺮُﻭﻥَ
আল্লাহ ও মুমিনগণকে তারা
ধোকা দিতে চায় কিন্ত
তারা নিজেদেরকে
নিজেরাই ধোকা দেয়,অথচ
তারা তা বুঝতে পারে না।
১০
ﻓِﻲ ﻗُﻠُﻮﺑِﻬِﻢ ﻣَّﺮَﺽٌ ﻓَﺰَﺍﺩَﻫُﻢُ ﺍﻟﻠّﻪُ ﻣَﺮَﺿﺎً ﻭَﻟَﻬُﻢ
ﻋَﺬَﺍﺏٌ ﺃَﻟِﻴﻢٌ ﺑِﻤَﺎ ﻛَﺎﻧُﻮﺍ ﻳَﻜْﺬِﺑُﻮﻥَ
তাদের অন্তরে ব্যাধি
রয়েছে,আল্লাহ তাদের
ব্যাধি আরো বৃদ্ধি
করেছেন,আর তাদের জন্য
রয়েছে কষ্টদায়ক শাস্তি, কারন
তারা মিথ্যাচারী।

জুম্মার নামাজ

জুম্মার নামাজের রাকা’ত সমূহ
জুম’আর নামাজে দুই রাকা’ত ফরজ, যা
ইমামের সাথে

আদায় করতে হয়।

অধিকাংশ আলেমদের মতে, জুম’আর
ফরজের
পূর্বে চার রাকা’ত কাবলাল
জুম’আ এবং ফরজের পরে চার রাকা’ত
বা’দাল জুম’আর সুন্নত নামাজ আদায়
করতে হয়। এছাড়া মসজিদে প্রবেশ
করে দুই রাকা’ত দুখলুল মসজিদ ও দুই
রাকা’ত তাহিয়াতুল ওযুর
মোস্তাহাব নামাজও উৎসাহিত করা
হয়।

অর্থাৎ জুম’আর নামাজের বিবরণীতে
বলা যায়ঃ
● মসজিদে প্রবেশ করে দুই রাকাত
তাহিয়াতুল ওযু ও দুই রাকা’ত দুখলুল
মসজিদের মোস্তাহাব নামাজ
আদায় করবে (ঐচ্ছিক)
● চার রাকা’ত কাবলাল জুম’আর সুন্নত
নামাজ একাকী আদায় করবে।
● ইমামের খুৎবা পাঠ মনোযোগ দিয়ে
শুনবে।
● ইমামের সাথে দুই রাকা’ত জুম’আর
ফরজ নামাজ আদায় করবে।
● ফরজ নামাজের পর
তাৎক্ষণিকভাবে মসজিদ ত্যাগ করবে
না, বরং চার রাকাত বা’দাল জুম’আর
সুন্নত নামাজ একাকী আদায় করবে/

এপ্রিল ফুল

এপ্রিল ফুল দিবসের করুণ ইতিহাস
এপ্রিল ফুল দিবসটি সৃষ্টির সাথে
রয়েছে মুসলমানদের করুণ ও হৃদয়র্স্পশী
এক
ইতিহাস। ১লা এপ্রিলের এই ইতিহাস

Continue reading “এপ্রিল ফুল”

রোযা না রাখার শাস্তি

রাসুলুল্লাহ্ (সা: ) বলতে
শুনেছি, তিনি বলেন, আমি ঘুমিয়ে
ছিলাম। স্বপ্নে দেখলাম আমার
নিকট দুই ব্যাক্তি আগমন করল। তারা
আমাকে বলল, আপনি পাহাড়ের
উপরে
উঠুন।
আমি বললাম, আমি তো উঠতে
পারবো না।

Continue reading “রোযা না রাখার শাস্তি”

রোযা ছাড়া আদম সন্তানের প্রতিটি কাজই তার নিজের জন্য; শুধু রোযা ছাড়া।

হাদীসে কুদসীতে রয়েছে, আবূ
হুরায়রা রাদিআল্লাহু আনহু
থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ
সাল্লাল্লাহু আলাইহি
ওয়াসাল্লাম বলেন, ‘আল্লাহ
বলেছেন, রোযা ছাড়া আদম
সন্তানের প্রতিটি কাজই তার
নিজের জন্য; শুধু রোযা ছাড়া।

Continue reading “রোযা ছাড়া আদম
সন্তানের প্রতিটি কাজই তার
নিজের জন্য; শুধু রোযা ছাড়া।”